ত্বক ফর্সা করার কার্যকরী ঘরোয়া টিপস

ত্বক হচ্ছে আমাদের সৌন্দর্যের অন্যতম একটি অংশ।ত্বক ফর্সা করার জন্য আমরা কত কিছুই না করি।দেশী বিদেশি নামি দামী কত ক্রিম।হাজার হাজার টাকা ব্যয় করে ফেলে ত্বক ফর্সা করার জন্য।কিন্তু এই সকল ত্বক ফর্সা করার ক্রিম কতটা কার্যকর?এ প্রশ্নে তারা কতই না বাহারি এবং চটকদার বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে।এক সপ্তাহে ত্বক ফর্সা করবে আরো কতো কি।তবে  এসকল ক্রিমে ত্বক ফর্সা করার চাইতে ক্ষতি করে থাকে বেশি।এসকল ক্রিমে থাকে বিভিন্ন ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান। যা আমাদের ত্বকের চরম ক্ষতি করে।এই ক্ষতি আমরা প্রথমে নজরে না আসলেও ভবিষ্যতে এর টের পাওয়া যায়।এসকল ক্রিমের ক্ষতিকর প্রভাবে স্কিন ক্যানসার পর্যন্ত হতে পারে।তাই আমাদের এসকল ক্রিম ব্যবহারে সতর্ক হওয়া উচিত।তাহলে প্রশ্ন থাকে আমরা কি তাহলে আমাদের ত্বক কে ফর্সা করতে পারবো না?অবশ্যই পারবেন তবে এসকল ক্ষতিকর ক্রিম  ব্যবহার করে নয়।সম্পুর্ন ঘড়োয়া এবং প্রাকৃতিক ভাবে।

তাহলে আসুন দেখে নেই কিভাবে আমরা ঘরোয়া উপায়ে আমাদের ত্বক কে ফর্সা করে তুলতে পারি।

ত্বকের সৈন্দর্য বৃদ্ধি করতে ঘরোয়া উপায় অনেক কার্যকর এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মুক্ত।এ কারনেই আমি আপনাদের জানাবো কয়েকটি ঘরোয়া কার্যকর এবং সম্পূর্ণ পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মুক্ত টিপস।

কাচা হলুদের ব্যবহার-

রূপচর্চায় কাঁচা হলুদ সেই আদিম কাল হতে ব্যবহার হয়ে আসছে। হলুদ আমাদের কালচে ত্বক ফর্সা করতে সহায়তা করে।এবং ত্বকের বিভিন্ন দাগ দূর করে। হলুদ,দুধ এবং লেবুর রস একসাথে মিলিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এরপর আপনার সারা মুখে লাগিয়ে প্যাকটি শুকানোর জন্য অপেক্ষা করুন। যখন দেখবেন প্যাকটি শুকিয়ে গিয়েছে তখন পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এবং নরম তোয়ালে দিয়ে মুখ মুছে ফেলুন।দেখবেন ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পেয়েছে।এবং নিয়মিত ব্যবহারের ফলে আপনার মুখের কালো দাগ দূর হয়ে যাবে এবং মুখ হয়ে উঠবে ফর্সা ও উজ্জল।

মসুরের ডালের ফেসপ্যাক-
ত্বক ফর্সা এবং উজ্জ্বল করে তুলতে মসুরের ডালের ফেসপ্যাক এর তুলনা নেই। এটি ব্যবহার করতে আপনি মশুরের ডাল প্রথমে একদম মিহি করে গুড়া করে নিন। এরপর একটি ডিমের কুসুম সাথে মিশিয়ে ভালোভাবে মিশ্রণটি শুকিয়ে নিন। মিশ্রণটি শুকিয়ে একদম মচমচে শুকনা হয়ে গেলে পরে। সেটি আবাল গুড়া করে বোতল বা কৌটার ভিতরে সংরক্ষণ করুন। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে এটি এক চামচ দুধ এবং কয়েক ফোঁটা লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। ভালোভাবে মেশান হয়ে গেলে পরে আপনার সম্পুর্ন মুখে এটি লাগান। এটি লাগিয়ে আধা ঘন্টা রেখে দিন। যখন শুকিয়ে আসলে তখন পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এরপরে নরম তুলায় কাঁচা দুধ লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন এরপর ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে উজ্জল এবং দীপ্তিময়।

Pure Beauty

হলুদ এবং দুধের ব্যবহার –
হলুদ ত্বকের জন্য যেমন বাহিক ভাবে অনেক কার্যকর তেমন ভিতর থেকেও অনেক উপকার করে থাকে। এক গ্লাস পরিমাণ দুধ নেই দুধ ভালোভাবে জ্বালিয়ে নিন। এরপরে 1 চা চামচ পরিমাণ কাঁচা হলুদ ভালোভাবে বেঁটে দুধের সাথে মিশে নিয়মিত খেলে ত্বক ফর্সা হয়ে উঠবে ভেতর থেকে। একটু যদি আপনি খেতে না পারেন তাহলে একটা হলুদ দুধের ভিতর দিয়ে ভালোভাবে জ্বালিয়ে নিন। গুডনাইট এবার হয়ে গেলে তা পান করুন দেখবেন এ তে খুব ভালো কাজ হয়েছে।

এ সকল টিপস নিয়মিত ব্যবহার করলে খুব দ্রুত আপনার ত্বক ফর্সা হয়ে উঠবে।এবং ত্বকে থাকা কালো দাগ খুব দ্রুত চলে যাবে।

 

(Visited 16 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *