ত্বক সুস্থ সতেজ ও সুন্দর রাখতে আমাদের করনীয়

সুস্থ এবং সুন্দর ত্বক সকলেরই কাম্য। কারণ ত্বকের মাধ্যমে আমাদের শরীরের সৌন্দর্য ফুটে ওঠে। তাই ত্বক ভালো রাখার জন্য আমরা কত কিছুই না করি। কত ধরনের কসমেটিকস ব্যবহার করে ত্বক ভালো রাখার জন্য। প্রতি মাসে হাজার হাজার টাকা ব্যয় করা হয় সুস্থ সুন্দর এবং সতেজ ত্বকের জন্য। তবে এ সকল প্রোডাক্ট বা থেরাপি আমাদের ত্বককে শুধুমাত্র উপর থেকে সুন্দর করে তোলে। কিন্তু ভেতর থেকে ত্বক সুন্দর না হলে এর রেশ বেশিদিন থাকে না। তক সুস্থ রাখতে করণীয়আমরা ত্বক ভালো রাখার জন্য বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যালযুক্ত পন্য ব্যবহার করি। এছাড়া নিত্যনতুন পণ্য বাজারে আসে ত্বক সুন্দর রাখার। তবে এর সবগুলোই কার্যকরী নয় এবং অনেক গুলোর বিভিন্ন ধরনের সাইডএফেক্ট রয়েছে। এর ফলে সৃষ্টি হতে পারে মারাত্মক সমস্যা।  আবার ত্বক ফর্সা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ঔষধ পাওয়া যাচ্ছে বর্তমানে। যেগুলো নাকি অল্প দিনের ভীতরে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে এবং ত্বক ফর্সা করে। তবে এগুলো কত  কার্যকর বা সাইডএফেক্ট মুক্ত তা আমার জানা নেই। তাই প্রাকৃতিক নিয়মে ত্বককে সুন্দর রাখতে যে সকল খাদ্য আমাদের খাওয়া উচিত তা জেনে নেই-

গাজর এটি আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী খাদ্য। নিয়মিত গাজর খেলে খুব দ্রুত ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায়। এছাড়াও রোদ এর ক্ষতিকর প্রভাব থেকে গাজর আমাদের ত্বককে রক্ষা করে। গাজর থেকে প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন এবং ভিটামিন সি পাওয়া যায়। যা আমাদের ত্বককে সুস্থ  সতেজ রাখতে এবং উজ্জলতা বৃদ্ধিতে  কাজ করে। এটি ত্বকের লালচে ভাব দূর করে।  প্রতিদিন এক গ্লাস পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে খেলে আমাদের যকৃত ভালো থাকে। এবং লেবু আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এটি যকৃত ভালো রাখে এবং পরিষ্কার রাখে। অপরদিকে ত্বক সুস্থ রাখতে যকৃতের ভূমিকা অপরিসীম। শসা এটিও ত্বকের জন্য খুবই উপকারী খাদ্য। শসায় সিলিকা নামক একটি  উপাদান থাকে যা ত্বক উজ্জ্বল এবং ফর্সা রাখে। ত্বকের কোলাজেন কে সুস্থ রাখে শসা  যার কারণে ত্বক টান থাকে। প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি এবং লাইকোপেন রয়েছে টমেটোতে। লাইকোপেন ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে এবং ভিটামিন সি ত্বকের রুক্ষতা দূর করে। তাই ত্বক সুস্থ এবং সতেজ রাখতে প্রচুর পরিমানে টমেটো খাওয়া উচিত।

এছাড়া প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা উচিত। পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করার ফলে ও ত্বক ভালো থাকে। সবুজ শাক সবজি, বাদাম, ক্যাপসিকাম, ব্রোকলি এইসব খেলে ত্বকের লাবণ্য এবং সুস্থতা উভয় বজায় থাকে। ওমেগা 3 ত্বকের  জন্য দরকারি একটি উপাদান। এবং মাছের তেল ওমেগা থ্রির একটি উত্তম উৎস।

এছাড়া তেল-চর্বি ভাজা পোড়া জাতীয় খাবার খুবই কম খেতে হবে। কারণ অতিরিক্ত চর্বি একদিকে যেমন দেহের জন্য ক্ষতিকর তেমনি ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। অতিরিক্ত চর্বির কারণে ত্বকের উজ্জ্বলতা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই অতিরিক্ত চর্বি জাতীয় খাবার পরিহার করতে হবে। এ ছাড়া তোকে কোন  সমস্যা দেখা দিলে দ্রুত অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। কারণ দীর্ঘদিন   ত্বকের  সমস্যা নিয়ে বসে থাকলে গুরুতর আকার ধারণ করতে পারে।

(Visited 55 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *