বাংলাদেশের কয়েকটি দর্শনীয় স্থান সমূহ

মানুষ স্বভাবতই ভ্রমণ প্রিয়সি। ভ্রমণ করতে সবারই খুব ভালো লাগে। আমরা সকলেই নানা কাজ কর্মের ফাঁকে কিছুটা বিনোদনের আশায় ছুটে চলি বিভিন্ন দিক দিগন্তে। বিভিন্ন স্থানে ঘুরে আমরা আমাদের ভ্রমণের তৃষ্ণা মেটাই। নতুন নতুন এবং না দেখা বিভিন্ন স্থানে ঘুরতে ভালো লাগে না এরকম লোক খুঁজে পাওয়া খুবই মুশকিল। আমরা সকলেই ঘুরতে পছন্দ করি।  অনেকেই ছুটিতে প্রিয়জনদের সাথে বিভিন্ন স্থানে ঘুরতে যায়। তবে কোথায় ঘুরতে গেলে সবচাইতে ভালো হবে তা ঠিক করা আসলে একটু  কষ্টসাধ্য ব্যাপার। কারণ তখন আমরা বিভিন্ন ধরনের জল্পনা-কল্পনার কারণে ঠিক করে উঠতে পারি না কোথায় ঘুরতে যাওয়া উচিত। আমাদের দেশে অনেক দর্শনীয় স্থান আছে যেখানে আপনি ঘুরতে যেতে পারেন আপনার প্রিয়জনদের নিয়ে। তাই আপনাদের মাঝে বাংলাদেশের কয়েকটি দর্শনীয় স্থানের বিবরণ তুলে ধরব।

সেন্টমার্টিন দ্বীপঃ সেন্ট মার্টিন দ্বীপ হচ্ছে খুবই সুন্দর একটি স্থান। এটি পৃথিবীর অন্যতম একটি প্রবাল দ্বীপ। এখানে প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক আসে ভ্রমণ করতে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের পাশাপাশি সেন্ট মার্টিন দ্বীপের ডাবের জন্য বিখ্যাত। এখানে প্রচুর পরিমাণে নারকেল গাছ জন্মে। আপনার প্রিয়জনদের নিয়ে ছুটি কাটাতে সেন্টমার্টিনে পাড়ি জমাতে পারেন।

কক্সবাজারঃ এটি পৃথিবীর অন্যতম একটি সমুদ্র সৈকত। এটি বাংলাদেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত। এখানে দেশী-বিদেশী অনেক পর্যটক আসে এটি বালুময় বিস্তৃর্ণ একটি প্রাকৃতিক স্থান। এছাড়াও এখানে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের  প্রাচীন দর্শনীয় বস্তু। ভ্রমণের জন্য একটি আদর্শ জায়গা হল কক্সবাজার।

কুয়াকাটাঃ কুয়াকাটার অপর নাম সাগর কন্যা কুয়াকাটা। এটি এশিয়া মহাদেশের মধ্যে একমাত্র সমুদ্র সৈকত যেখানে আপনি সূর্যাস্ত এবং সূর্যোদয় দুটোই দেখতে পাবেন। যারা সমুদ্রকে ভালোবাসেন তাদের জন্য দুর্দান্ত একটি স্থান হচ্ছে কুয়াকাটা।

সুন্দরবনঃ সুন্দরবনের আরেক নাম ম্যানগ্রোভ বনভূমি। সারা পৃথিবীর মধ্যে অন্যতম ম্যানগ্রোভ বনভূমি এটি। এ সৌন্দর্যের টানে সারা পৃথিবীর লোক ছুটে আসে। এখানে আপনি প্রাকৃতিক জোয়ার-ভাটার অপরূপ সৌন্দর্য দেখতে পাবেন। এটি বিশ্বের অন্যতম একটি দর্শনীয় স্থান।  বিশ্ব বিখ্যাত রয়েল বেঙ্গল টাইগারের আবাসভূমি হচ্ছে এই সুন্দরবন।  এখানে প্রতিবছর লাখ লাখ পর্যটক আসে তবে শীতের শেষের দিকে পর্যটকের সংখ্যা বেশি হয়।

নিঝুম দ্বীপঃ চোখ জুড়ানো সৌন্দর্যের লীলাভূমি বাংলাদেশের দক্ষিণে নোয়াখালী হাতিয়া নিঝুম দ্বীপ। এই নিঝুম দ্বীপ নোয়াখালী সবচাইতে দক্ষিণের উপজেলা হাতিয়ায় অবস্থিত। এটি শুধুমাত্র সৌন্দর্যেই নয় এটি সম্পদের এক অপার সম্ভাবনাময় স্থান। বঙ্গোপসাগরের কোল কিসের তৈরি হওয়া এই দ্বীপ সবুজের সমারোহ বঙ্গোপসাগরের উত্তাল ঢেউ আর হিমেল হাওয়ায় এই দ্বীপটিকে একটি মনোরম পরিবেশ দান করেছে।

সোনাদীয়া দ্বীপঃ কক্সবাজারের মহেশখালীর কাছে সোনা দিয়া দ্বীপ অবস্থিত। এটি ম্যানগ্রোভ বনভূমি এবং উপকূলীয় বনভূমির সমন্বয়ে গঠিত একটি দ্বীপ।

সোমপুর মহাবিহারঃএটি একটি ঐতিহাসিক স্থান সোমপুর মহাবিহার অবস্থিত পাহাড়পুর বিহারে ।  ভারতীয় উপমহাদেশে বৌদ্ধবিহার হিসেবে ব্যাপক পরিচিত এটি। এটা পর্যটকদের জন্য সবচেয়ে বিখ্যাত  একটি স্থান। কারণ এটি অনন্য একটি স্থাপত্য। এই স্থান পরিদর্শন করেন বেশির ভাগ ভারতীয় পর্যটক।

ষাট গম্বুজ মসজিদঃ এটি বাগেরহাট জেলায় অবস্থিত। এর নাম এরকম হওয়ার কারণ এই মসজিদের   উপরে ৬০ টি বিশাল আকার গম্বুজ রয়েছে। আর এ কারণেই এদের নাম হয়েছে ষাট গম্বুজ মসজিদ। এটি তৈরি করেন খান জাহান আলী। এই মসজিদের পাশেই রয়েছে খান  জাহান আলীর মাজার। অনেক লোক এখানে ঘুরতে আসে এবং খানজাহান আলীর মাজার দেখতে আসে।

এগুলো ছাড়াও আমাদের দেশে রয়েছে অসংখ্য দর্শনীয় স্থান এবং প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ঘেরা মনোরম পরিবেশ। তবে সব গুলোর ব্যাখ্যা বা সবগুলো পরিচয় করিয়ে দেয়া একটি পোষ্টের মাধ্যমে সম্ভব না।  এই সমস্ত স্থানে আপনি চাইলে ঘুরে আসতে পারেন এর ফলে এক দিক দিয়ে আপনার ভ্রমণের তৃষ্ণা মিটবে অপরদিকে জ্ঞান আহরণ ও হয়ে যাবে।

(Visited 12 times, 1 visits today)

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *