শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলুন খুব সহজে

বর্তমান সময়ে অতিরিক্ত ওজন একটি কমন সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অধিকাংশ লোকজন এই সমস্যার শিকার। মুলত আমাদের ওজন বৃদ্ধির প্রধান কারণ হচ্ছে খাদ্যাভ্যাস, পরিশ্রমের কাজ না করা, ব্যায়াম না করা ইত্যাদি কারণে আমাদের ওজন দ্রুত বৃদ্ধি পায়। আমরা  খাবার থেকে যে ক্যালরী পাই তা যদি আমরা খরচ না করি। তাহলে তা আমাদের শরীরে চর্বি আকারে জমা হয় এবং আমাদের শরীরের ওজন দ্রুত বৃদ্ধি পায়। এরপরে ওজন কমানোর জন্য আমরা বিভিন্ন প্রকার ঔষধ সেবন সহ বিভিন্ন কাজ করে থাকি এবং বিভিন্ন ডাক্তারের শরণাপন্ন হই। কিন্তু সামান্য নিয়ম কানুন এর মাধ্যমে আমাদের শরীরের অতিরিক্ত ওজন দ্রুত কমিয়ে ফেলতে পারি। তাই আপনাদের জন্য ওজন কমানোর কয়েকটি টিপস নিয়ে আসলাম-

ওজন কমানোর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় হচ্ছে যে সকল খাদ্য আমাদের ওজন বৃদ্ধি করে তার থেকে বিরত থাকা। কারণ এই সকল খাদ্য আমরা খেলে ওজন কমানোর জন্য যতই ব্যবস্থা নেই না কেন ওজন কমবে না। যে সকল খাদ্য অতিরিক্ত মাত্রায় ক্যালরি থাকে সে সকল খাদ্য পরিহার করা একান্ত আবশ্যক। এবং  চিনি বা মিষ্টিজাতীয় খাবার থেকে দূরে থাকা উচিত। এর কারণ হচ্ছে মিষ্টিতে প্রচুর পরিমানে ক্যালরি থাকে। যখন আমরা অতিরিক্ত মাত্রায় ক্যালরি গ্রহণ করে কিন্তু তা খরচ না করি তা শরীরে চর্বি বা মেদ আকারে জমা হয়।  তেল চর্বিযুক্ত খাবার সম্পূর্ণরূপে পরিহার করা উচিত। পরিমিত খাদ্যাভ্যাস ওজন কমানোর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। খাদ্যতালিকায় বেশি করে শাকসবজি এবং পুষ্টিকর খাবার রাখতে হবে।যেমন, পাতাকপি ফুলকপি টমেটো শসা ইত্যাদি এ জাতীয় খাবার আপনি যতই খাবেন আপনার ওজন বৃদ্ধি পাবে না। তাই খাদ্যতালিকায় কিছুটা পরিবর্তন আনুন। আপনি চর্বিযুক্ত খাবার সম্পূর্ণরূপে পরিহার  করে শাকসবজি জাতীয় খাবারের পরিমাণ বাড়িয়ে দিন। এতে  করে শরীরের পুষ্টি চাহিদা দেখা দেবে না। কিন্তু  ওজন কমিয়ে আনতে সহায়তা করবে। বেশি পরিমাণে পানি পান করুন। বেশি পরিমাণে পানি পান করলে আমাদের কিডনি ভালো থাকে। এবং আমাদের পেটে চর্বি জমতে বাধা প্রদান করে। সামান্য উষ্ণ গরম পানি পান করলে আমাদের শরীরের চর্বির পরিমাণ হ্রাস পায়। তাই সামান্য উষ্ণ গরম পানি পান করুন।

ঘুমানোর আগে কখনোই অতিরিক্ত খাবার খাবেন না। পরিমিত পরিমাণে খাদ্য গ্রহণ করুন এবং যে সকল খাদ্যের ক্যালরি একদম কম ঘুমানোর আগে সে সকল খাবার শুধুমাত্র খাবেন। কারণ ঘুমানোর আগে অতিরিক্ত ক্যালরি এবং চর্বিযুক্ত খাবার শরীরের ওজন দ্রুত বৃদ্ধি করে।

এছাড়া নিয়মিত ব্যায়াম করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। অনেক ব্যায়াম আছে যেগুলো শরীর এর ওজন কমাতে সহায়তা করে। এবং একটি খুবই কার্যকর উপায় হচ্ছে ব্যায়াম করা। আপনি নিয়মিত হাঁটা অথবা দৌড়ানোর অভ্যাস করেন।  এতে শরীরের ক্যালরি  দ্রুত ক্ষয় হবে এবং আপনার শরীরের চর্বি কমতে শুরু করবে।

এই সাধারণ কিছু অভ্যাস গড়ে তুললে আপনার ওজন দ্রুত কমিয়ে ফেলতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে কোন প্রকার ডাক্তারের পরামর্শ বা ঔষধ সেবন করা লাগবে না। বর্তমানে বাজারে বিভিন্ন প্রকার ঔষধ পাওয়া যায় শরীরের ওজন কমানোর জন্য। এসকল  ঔষধ সেবন না করাই ভালো। কারণ এই সকল ঔষধ সেবনের মাধ্যমে মানুষের শরীরে বিভিন্ন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিতে পারে। তাই উপরোক্ত বিষয়গুলো  নিয়মিত মেনে চলুন তাহলে খুব অল্প দিনের ভিতরেই আপনার শরীরের ওজন স্বাভাবিক হবে। এছাড়াও  খাদ্যাভ্যাসে ভালো পরিবর্তন আসবে। আপনি এসব বিষয়ে অভ্যস্থ হয়ে গেলে ভবিষ্যতে  আবার ওজন বাড়ার ঝুঁকি অনেক কমে যাবে।

(Visited 23 times, 1 visits today)

Related Post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *