কৃমির লক্ষণ এবং কৃমি প্রতিকার করবেন যেভাবে

কৃমি সাধারণ বিষয় হলেও এটি মারাত্মক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই কৃমির সমস্যা দেখা দিলে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। কৃমির সংক্রমণ দেখা দিলে বিভিন্ন লক্ষণ দেখা দেয় যেমন বমি বমি ভাব পেটে পেটে ভার অনুভব করা পেটে ব্যথা মুখে অতিরিক্ত পরিমান থুথু ওঠা ইত্যাদি উপসর্গ দেখা দিতে পারে। এছাড়া কৃমির খাদ্য হচ্ছে রক্ত।তাই শরীরে অতিরিক্ত কৃমির সংক্রমণ থাকলে দেহ অপুষ্টিতে ভোগার আশঙ্কা বেড়ে যায়।বক্র কৃমির প্রধান খাদ্য হচ্ছে রক্ত। এটি অনেক সময় শিশুদের অ্যাপেন্ডিক্স এর ভিতর প্রবেশ করে এপেন্ডিসাইটিস এর সমস্যা ঘটাতে পারে। এ ছাড়াও শিশুদের ক্ষেত্রে নাক এবং মুখ দিয়ে কৃমি বের হতে পারে। দীর্ঘদিন কৃমির মাত্রাতিরিক্ত সংক্রমনের ফলে অন্ত্রে ছিদ্র করে মারাত্মক সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে। এটি সাধারণ বিষয় মনে হলো এটা কি কখনই ছোট করে দেখা উচিত নয়।

কৃমির সংক্রমণ হতে মুক্ত থাকতে যে সকল বিষয়ে করণীয় তা হল –

স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন ব্যবহার করতে হবে।

কৃমির সমস্যা বেশি ভুগে থাকেন গ্রাম অঞ্চলের লোকজন কেমন আছে তারা স্বাস্থ্য সম্পর্কে বেশি সচেতন নয়। তারা অনেকেই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পরিবেশে বাস করে। এবং গ্রামের শৌচাগার গুলো স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে তৈরি করা হয় না। যার ফলে এটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।এক্ষেত্রে গ্রামের মানুষকে বেশি পরিমাণে সতর্ক থাকতে হবে।

মলত্যাগের পর এর সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে।

শাকসবজি ফলমূল ভালো করে ধুয়ে খেতে হবে।

স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে থাকা যাবে না। সবসময় সেন্ডেল ব্যবহার করতে হবে।

মাংস ভালোভাবে সিদ্ধ করে রান্না করতে হবে।

উপরোক্ত বিষয় গুলো মেনে চললে আমাদের কৃমির ঝুঁকি অনেকাংশে কমে যাবে।

কৃমিতে আক্রান্ত হলে কি করবেন-

কৃমিতে আক্রান্ত হলে  দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এবং নিয়মিত কৃমির ঔষধ খেতে হবে। কৃমির চিকিৎসা ব্যয়বহুল নয়। বড়দের জন্য খাওয়ার ট্যাবলেট এবং শেষ ছোটদের জন্য সিরাপ রয়েছে। এবং এগুলোর মূল্য অনেক কম।কৃমি নিয়ন্ত্রণে রাখতে হলে নির্দিষ্ট সময় পর পর কৃমির ওষুধ খাওয়া উচিত। কারণ এটি সবার শরীর নিয়ে কোন দেশে থাকে কিন্তু মাত্রাতিরিক্ত হয়ে গেলে বিভিন্ন সমস্যা দেখা যায়। তাই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময় পর পর কৃমির ওষুধ খেতে হবে। বাচ্চাদের পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *