চুলের যত্নে মেহেদি পাতার কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবহার

মেহেদী সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে সেই প্রাচীনকাল থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে মেহেদী পাতা।মেহেদী পাঠা মূলত একটি ভেষজ গুণসম্পন্ন পাতা। এবং এটি ফেসওয়াশ হওয়ার কারণ এর কোনো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে আমরা বিভিন্নভাবে মেহেদি পাতার ব্যবহার করে থাকি। যেমন হাতে অস্থায়ী ট্যাটু করার জন্য আমরা মেহেদি পাতা ব্যবহার করে থাকি। নখ রাঙাতে মেহেদি পাতার ব্যবহার করা হয়। বিভিন্ন উৎসব-অনুষ্ঠানেও মেহেদি এর ব্যবহার লক্ষ্য করার মতো। বিশেষ করে নারীদের সৌন্দর্য বৃদ্ধের কাছে মেহেদিপাতার কোন তুলনা নেই।

চুলের যত্নে মেহেদি পাতার ব্যবহার

সৌন্দর্য বিশেষজ্ঞদের মতে মেহেদী পাতা হচ্ছে একটি সম্পূর্ণ হালাল এবং ভেষজ গুণসম্পন্ন রূপচর্চার উপকরণ। চুলের যত্নে মেহেদি পাতার নানা ব্যবহার জানব। মেহেদি পাতা আমাদের চুলকে রাঙাতে সহায়তা করে। চুলকে রঙিন করার জন্য বাজারে বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল হেয়ার ডাই পাওয়া যায়। এসব বলে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকর কেমিক্যাল এবং স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর এসিড। এসকল ব্যবহারে আমাদের বিভিন্ন স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকেই যায় পাশাপাশি ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে এসব করলে আল্লাই ব্যবহার করার ফলে। পুরানো পাশাপাশি মেহেদী আমাদের মাথাকে ঠান্ডা রাখতে সহায়তা করে। চুল ঘন করতে সহায়তা করে। চুলের রুক্ষতা দূর করে।খুশকি দুর করতে সহয়তা করে এবং চুলকে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করে তোলে।

আসুন চুলের যত্নে মেহেদি পাতার কিছু ব্যবহার সম্পর্কে আমরা জেনে নেই-

সৌন্দর্য চর্চায় মেহেদি পাতা

১: চুল রাঙ্গাতে মেহেদি পাতার ব্যবহার-
চুলকে রঙিন করতে মেহেদি পাতার ব্যবহার হচ্ছে অনেক আগে থেকেই। আপনি যদি চুল কেন বলতে চান তাহলে কেমিক্যালযুক্ত হেয়ার ডাই ব্যবহার ছাড়াই আপনি মেহেদি পাতার সাহায্যে আপনার চুলকে রঙিন করে তুলতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে যা করতে হবে তা হল, 2 চা চামচ আমলকির গুঁড়ো নিন এর সাথে 1 চামচ ব্ল্যাক টি এবং দুটি লবঙ্গ মিশিয়ে ভালোভাবে সিদ্ধ করুন। এর পরে সেই মিশ্রণের সাথে আপনি মেহেদী পাউডার মিশিয়ে নিন। এবার মিশ্রণটি ঘণ্টা দুয়েকের জন্য রেখে দিন এবং এর পরের চুলে ব্যবহার করুন। কিছু সময় এভাবেই রেখে দিন। কিছু সময় পরে দেখবেন আপনার চুল রঙিন হয়ে উঠেছে। এরপরে চুল ধুয়ে ফেলুন।

২: চুলের বৃদ্ধিতে মেহেদি পাতার ব্যবহার-
চুলের বৃদ্ধিতে মেহেদি পাতার ব্যবহার অনস্বীকার্য। মেহেদী পাতা চুলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করে। চুলকে দ্রুত লম্বা করে তুলতে হলে মাথায় নিয়মিত মেহেদি পাতা ব্যবহার করুন।

৩: মাথার তালু চুলকানি দূর করতে-
মেহেদি পাতা একটি সৌন্দর্যের উপকরণ এর পাশাপাশি এটি একটি ঔষধি গুণ সম্পন্ন উপাদান। আমরা অনেকেই রয়েছে যারা মাথার তালু চুলকানির সমস্যায় ভুগে থাকে তারা এই মেহেদী পাতা তালু চুলকানি দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন। এর ফলে আপনার মাথার তালু চুলকানির দুর করার পাশাপাশি আপনার চুল স্বাস্থ্যোজ্জ্বল হয়ে উঠবে।

ছবি:মেহেদি পাতা

৪: কন্ডিশনার হিসেবে মেহেদি পাতার ব্যবহার-
বাজারে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের কন্ডিশনার পাওয়া যায় কিন্তু এগুলো সবই কেমিক্যালযুক্ত কিন্তু মেহেদি পাতা হচ্ছে প্রাকৃতিক। চুলে মেহেদি পাতার ব্যবহারের ফলে চুলের উপর একটি সুরক্ষা স্তর গঠিত হয় এবং এর ফলে চুলের ভঙ্গুরতা দূর হয় এবং চুল উজ্জ্বল হয়।

উপরোক্ত বিষয় ছাড়াও আরো বিভিন্ন উপকার সাধন করে থাকে মেহেদি পাতা। আরে কারনে চলে প্রতি কালকে আমি কালকে অপব্যবহার বর্জন করে মেহেদি পাতা হতে পারে আপনার সৌন্দর্যের অন্যতম একটি উপাদান।

(Visited 39 times, 1 visits today)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *