মাত্র 10 মিনিটে খুলুন একটি Coinbase একাউন্ট

আজ আমি আপনাদের মধ্যে শেয়ার করব কীভাবে একটি কয়েনবেস একাউন্ট খুলতে হয়।

মূলত কয়েনবেস একাউন্ট খোলা খুবই সহজ কিন্তু আমরা যারা না জানি তাদের কাছে একটু কঠিন ব্যাপার। তাই আমি আপনাদের শিখিয়ে দিব কিভাবে একটি কয়েনবেস একাউন্ট খুলতে হয়।

আমাদের অনেকেই বিভিন্ন ওয়েবসাইটে এবং বিভিন্ন অ্যাপস এ কাজ করেন যেখানে পেমেন্ট মেথড থাকে বিটকয়েন,লাইট কয়েন, ইথারিয়াম,বিটকয়েন ক্যাশ ইত্যাদি। এছাড়াও অনেকে আইসিও এবং এয়ার ড্রপ এ কাজ করেন এবং তারা যে কয়েন পান তা বিভিন্ন সাইটে এক্সচেঞ্জ করে বিটকয়েন এ নেন। তাই সেই বিটকয়েন রাখার জন্য একটি ওয়ালেট এর প্রয়োজন পড়ে। বিটকয়েন বা বিভিন্ন ক্রিপ্টোকারেন্সি রাখার জন্য অনেক ওয়ালেট রয়েছে। কিন্তু তার মধ্যে সবচাইতে জনপ্রিয় হচ্ছে কয়েনবেস। এবং এটির জনপ্রিয়তা পাওয়ার কারণ হচ্ছে এটি ব্যবহার করা অনেক সহজ অন্যান্য ওয়ালেট এর তুলনায়। এছাড়া অনেক ওয়ালেট আছে যেগুলো কি স্টোর ফাইল বা প্রাইভেট কি এর মাধ্যমে এক্সেস করতে হয়। যা সিকিউর হলেও অনেকটা রিস্কি হয়ে যায়। কারণ আপনি যদি কোন কারনে কি স্টোর ফাইল বা প্রাইভেট কি হারিয়ে ফেলেন তাহলে আর কোনভাবেই আপনার ওয়ালেট এ ঢুকতে পারবেন না। তাই আমি আপনাদের সাজেস্ট করি আপনারা কয়েনবেস একাউন্ট ব্যবহার করবেন। এটি একদিকে যেমন ব্যবহার করা সহজ তেমন সিকিউরিটি ও অনেক ভালো। এবং সবচেয়ে বড় কথা হলো এটি ব্যবহার করতে আপনাদের কোন কি স্টোর ফাইল বা প্রাইভেট কি সংরক্ষণ করতে হবে না। এটি শুধুমাত্র আপনাদের ইমেইল ফোন নাম্বারের মাধ্যমে চালাতে পারবেন। এবং কোন নতুন ডিভাইসের লগইন করতে হলে অবশ্যই আপনার ফোন নাম্বার এর প্রয়োজন পড়বে।তাই আপনার একাউন্টের ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড পেলেও আপনার নম্বরের পাঠানো ভেরিফিকেশন কোড ছাড়া লগ ইন করতে পারবে না। তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে আমরা কিভাবে একটি কয়েন বেজ একাউন্ট খুলব তা দেখে নেই-

সাইন আপ করতে প্রথমেএখনো ক্লিক করুন।

ক্লিক করার পরে আপনার সামনে এরকম একটি পেজ আসবে।

প্রথম ঘরে আপনার ফার্স্ট নেম দিন। দ্বিতীয় ঘরে সেকেন্ড নেম অর্থাৎ আপনার টাইটেল দিন। এরপর আপনার ইমেইল এড্রেস দিন। এরপরে আপনার পাসওয়ার্ড দিন পাসওয়ার্ডটি আপনি আট ডিজিটের উপরে দিবেন এবং লেটার ডিজিট এর সমন্বয়ে পাসওয়ার্ড তৈরি করবেন।

এরপরে আই এম নট রোবট ক্লিক করে ক্যাপচা পুরন করুন। টার্মস এন্ড কন্ডিশন এর ঘরে টিক চিহ্ন দিয়ে সাইন আপ এ ক্লিক করুন।

যথাযথভাবে ফরমটি পূরণ করা হলে আপনার ইমেইলে একটি ভেরিফিকেশন অ্যাড্রেস যাবে। ভেরিফিকেশন অ্যাড্রেস এ ক্লিক করে ইমেইল ভেরিফিকেশন করুন।

ইমেইল ভেরিফিকেশন করা হলে এরকম একটি পেজ আসবে-

এবার আপনার ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দ্বারা সাইন ইন করুন। সাইন ইন করা শেষে আপনাকে টু স্টেপ ভেরিফিকেশন এর জন্য ফোন নাম্বার দিতে বলবে। এখানে আপনার ফোন নাম্বার দিয়ে টু স্টেপ ভেরিফিকেশন চালু করুন যাতে করে প্রত্যেকবার লগইনের শুরুতে আপনার ফোন নাম্বারে প্রদত্ত কোড এর মাধ্যমে লগ ইন করতে হয়। ফোন নাম্বার দিলে পরে আপনার ফোন নাম্বার একটি কোড যাবে।

ফাঁকা ঘরটিতে আপনার ফোন নাম্বারে পাওয়া কোডটি বসিয়ে সাবমিট এ ক্লিক করুন।

কোড সাবমিট করার সাথে সাথে আপনার কয়েনবেস একাউন্ট লেনদেনের জন্য প্রস্তুত হবে।

এবার সেটিং এ গিয়ে আপনার সমস্ত ইনফরমেশন দিতে পারেন। এবং ভোটার আইডি কার্ড বা পাসপোর্ট সাবমিট করতে পারেন না করলেও কোন সমস্যা হবে না। আপনি লেনদেন করতে পারবেন।

বিঃদ্রঃ ভোটার আইডি কার্ড বা পাসপোর্ট সাবমিট করে একাউন্ট ভেরিফাই করলে আপনি মাস্টার কার্ড বা পেপালের মাধ্যমে বিটকয়েন বা অন্যান্য কয়েন কিনতে পারবেন।

বিটকয়েন বা অন্যান্য কয়েন ইনকাম করতে আমাদের সাথেই থাকুন কারণ আগামীতে অনেক নতুন নতুন আর্নিং পোস্ট করা হবে।এবং মতামত বা কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।

পোস্টটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ দিয়ে আজকের মত এখানেই শেষ করছি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *