শরীরের মেদ বা চর্বি কমানোর সহজ উপায়

শরীরের মেদ বা চর্বি জমা একটি মারাত্মক সমস্যার বিষয়। এর ফলে যে রকম চলতে ফিরতে সমস্যা হয় তেমনি দেহের সৌন্দর্য নষ্ট হয়। তাছাড়া যতই সুন্দর জামাকাপড় পরা হোক না কেন পেটে মেদ বা চর্বি থাকলে তা খুব খারাপ দেখা যায়। এতে এক দিক দিয়ে   শারীরিক সমস্যা হয়। হাটা চলা এবং কাজকর্মের সময় খুবই অসস্থির কারণ হয়ে যায় শরীরের মেদ।তেমনি মানুষের মাঝে চলতে ফিরতে গেলে নিজের ভিতরে কি রকম একটা আনইজি ফিল হয়। বর্তমানে খুব অল্প  বয়সেই মানুষের মেদ জমতে শুরু করে। এর ফলে দেহের সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়। এছাড়া  স্বাস্থ্যের অনুপাতে শরীরের মেদের কারণে পেট অনেক ভারী দেখা যায়। তাই আমরা জানবো কিভাবে শরীরের মেদ কন্ট্রোলে রাখা যায়। এবং অতিরিক্ত মেদ কমিয়ে শরীরের ফিটনেস বজায় রাখা যায়।

শরীরের মেদ বা চর্বি কমানোর জন্য আমাদের সবসময় স্বাস্থ্যকর এবং পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিত। অতিরিক্ত তেল চর্বি জাতীয় খাবার শরীরে মেদ জমার জন্য দায়ী। অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত মাংস মাছ ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে শরীরের মেদ জমে। তাই শরীরের মেদ কে কন্ট্রোলে রাখতে হলে চর্বিযুক্ত খাবার খাওয়া বর্জন করতে হবে। এবং শাকসবজি জাতীয় খাবার বেশি করে খেতে হবে।

বিভিন্ন ধরনের শাকসবজি এবং ফলমূল খেতে হবে তাহলে আমাদের শরীরে মেদ জমবে না। কারণ শাকসবজি এবং ফলমূল এ চর্বি থাকে না। তাই এটি একদিকে যেমন আমাদের পুষ্টির চাহিদা মেটায়। তেমনি শরীরের মেদ কে কন্ট্রোলে রাখতে সহায়তা করে। শরীরের অতিরিক্ত মেদ কমাতে ভাত খাওয়ার পরিমাণ কমিয়ে দিতে হবে। ভাতের পরিবর্তে গম জাতীয় খাদ্যের পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে পারেন। প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে। পানি আমাদের হজম শক্তি কে বাড়িয়ে তোলে এবং আমাদের শরীর থেকে ক্ষতিকর পদার্থগুলো বের করে দেয়। এটি প্রমাণিত যে  পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করার ফলে পেটে চর্বি জমতে পারে না।এছাড়া বেশি পরিমাণে শসা খেতে পারেন। কারণ ১০০ গ্রাম শসায় আপনি পাবেন মাত্র ৬ ক্যালোরি।অপরদিকে ১০০ গ্রাম শসা আমাদের হজম করতে প্রায় ১৬ ক্যালোরি শক্তি খরচ হয়ে যায়। এর অর্থ হচ্ছে প্রতি ১০০ গ্রাম  শসা আমাদের শরীরের ক্যালরি বৃদ্ধি করার পরিবর্তে আরো ১০ ক্যালরি শক্তি খরচ করে ফেলে। আর এ কারণে শসা খেলে আমাদের শরীরের ক্যালোরি দ্রুত খরচ হওয়া শুরু করবে। এবং অতিরিক্ত ক্যালরি আমাদের শরীরের চর্বি আকারে জমা হয়। আর এর ফলে আমাদের শরীরের চর্বি জমতে পারবে না। তা। মিষ্টি জাতীয় খাবার সম্পূর্ণ রূপে পরিহার করুন। মিষ্টি জাতীয় খাদ্য প্রচুর পরিমাণে  ক্যালোরি থাকায় মেদ জমতে শুরু করে।  দ্রুত ওজন কমাতে চাইলে মাছ মাংস জাতীয় খাবার খুবই কম খান। এবং খেলেও চর্বিজাতীয় অংশ খাওয়া যাবে না।

এছাড়া অতিরিক্ত চর্বি কমানোর জন্য সকাল বেলা খালি পেটে। উষ্ণ গরম পানির ভিতর লেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারে। এর সাথে আপনি সামান্য লবণ এবং এক চামচ মধু মিশিয়ে নিতে পারেন। তবে কোনোভাবেই চিনি মেশানো যাবে না। কারণ চিনিতে প্রচুর পরিমানে ক্যালরি থাকে।  যা চর্বি বাড়াতে সহায়তা করে। এরকম নিয়মিত পান করলে এক সপ্তার ভিতর চর্বি কমতে শুরু করবে। কারণ খালি পেটে লেবুর শরবত খেলে আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধি পায়।

খাবারের ঝাল বেশি খাবেন। যেরকম দারচিনি গোলমরিচ কাঁচা মরিচ এই সমস্ত ঝাল জাতীয় মসলা এগুলো আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতি করে না। কিন্তু চর্বি কমাতে ঝাল জাতীয় খাবার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

এরপরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ব্যায়াম করতে হবে। কারণ দ্রুত চর্বি বা মেদ কমানোর সহজ উপায় হচ্ছে ব্যায়াম করা। ব্যায়াম করলে আমাদের শরীরের ক্যালোরি খরচ হতে শুরু করে। এবং যে সময় আমাদের শরীরে কেলোর এর ঘাটতি দেখা দেয় তখন চর্বি বা মেদ এর থেকে আমাদের শরীর ক্যালরির যোগান দেয়। আর এ কারণেই শরীরের চর্বি কমাতে এবং ফিটনেস বজায় রাখতে ব্যায়াম এর কোন বিকল্প নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *