শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড : ভাবসম্প্রসারণ

মূলভাবঃ শিক্ষা জাতির জন্য অমূল্য সম্পদ । একটি দেহের জন্য মেরুদণ্ড যেমন মুল ভিত্তি, ঠিক তেমই ভাবে শিক্ষা হলো একটি জাতির মূল ভিত্তি । শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি আলোকিত হতে পারে না ।

সম্প্রসারিত ভাবঃ মানুষের সমুন্নত দেহ গঠনের মূলে রয়েছে মেরুদন্ড। মানবদেহের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলোর মধ্যে মেরুদন্ডর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মেরুদ-হীন মানুষ চলৎশক্তিহীন, দাঁড়াতে-বসতে অক্ষম। তাই মেরুদন্ডহীন মানুষের জীবন অর্থহীন ও গ্লানিময়। একটি জাতি যখন অন্যান্য জাতির সাথে সমানভাবে দাঁড়াতে না পারে বা চলতে না পারে তখন সেই জাতির উন্নতির পথ থেমে পড়ে। হালবিহীন নৌকা যেমন তীরে পৌঁছাতে পারে না তেমনি শিক্ষা ছাড়া কোনো জাতি উন্নত হতে পারে না। শিক্ষা এবং উন্নয়ন পরস্পর পরস্পরের সঙ্গে নিবিড়ভাবে সম্পর্কিত। কোনো জাতির উন্নয়নের পূর্বশর্ত হচ্ছে শিক্ষা। উন্নয়ন কোনো প্রাকৃতিক ব্যাপার নয়, স্বয়ংক্রিয় কোনো ব্যাপারও নয়, তা সরাসরি শিক্ষার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। যে জাতি যত-শিক্ষিত সে জাতি তত উন্নত। সর্বোত্তম শিক্ষা মানুষের মস্তিষ্কবৃত্তিকে সজাগ করার পাশাপাশি হৃদয়বৃত্তিকেও জাগ্রত করে। শুধু মস্তিষ্কবৃত্তি জাগ্রত হলে কোনো জাতি হয়তো কেবল প্রযুক্তিগত উৎকর্ষ সাধন করতে পারে, অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হতে পারে। কিন্তু কোনো জাতির হৃদয়বৃত্তি জাগ্রত না হলে সে জাতির সার্বিক উন্নয়ন সাধন হয় না। প্রকৃত শিক্ষা মানুষকে মানুষের স্তরে উন্নীত করে। আর মানুষ যখন প্রকৃত মানুষের স্তরে উন্নীত হয়, তখন তাদের চূড়ান্ত উন্নয়ন সম্পন্ন হওয়ার পথে কোনো বাধা থাকে না। শিক্ষা হচ্ছে সেই শক্তি যে শক্তিতে বলীয়ান হয়ে মানুষ সমাজ ও জাতির প্রভূত উন্নতি সাধন করতে পারে। মনীষী ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ বলেছেন- ‘শিক্ষাই হচ্ছে মানুষের শক্তি।’ এই শক্তিবলে বলীয়ান হয়ে একটি জাতি পরিপূর্ণ জাতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে। শিক্ষার মাধ্যমে সংস্কারমুক্ত হয়ে একটি জাতি সমস্ত প্রতিকূলতাকে অতিক্রম করে উন্নতির চরম শিখরে আরোহণ করতে পারে। অন্য সকল উন্নত জাতির পাশাপাশি মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে।

মন্তব্যঃ একটি জাতিকে আদর্শ জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করতে হলে শিক্ষিত একটি জনগোষ্ঠীর প্রয়োজন আর তার জন্য অপরিহার্য হলো শিক্ষা। তাই সর্বস্থানে সর্বাগ্রে শিক্ষাকে অবশ্যই গুরুত্ব দিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *