স্ট্রোকের পূর্ব লক্ষণ সমূহ ও করনীয়

স্ট্রোক হচ্ছে বর্তমানে একটি মারাত্মক সমস্যা যে কোন বয়সের লোকদের স্ট্রোক হতে পারে। ইসকেমিক ও হেমোরেজিক মূলত এই দুই ধরনের স্ট্রোক হয়ে থাকে। মস্তিষ্কের রক্ত চলাচল কমে যায় ইসকেমিক স্ট্রোক এর কারণে। মূলত এই সমস্যা করে থাকে রক্তনালীর ভিতর জমাট বাঁধা রক্ত পিন্ডের কারনে। এবং সচরাচর মানুষ এই অফ স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়। হেমোরেজিক স্ট্রোক এর কারনে মস্তিষ্কের রক্তনালী ছিড়ে যায় এবং রক্ত ক্ষরণ ঘটে। মস্তিষ্কে ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় স্ট্রোকের কারণে। এবং স্ট্রোক খুব দ্রুত সংঘটিত হয় তাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগীকে নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়। তাই আমাদের সকলের জেনে নেওয়া উচিত স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পূর্ব লক্ষণ সমূহ!

স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার আগে অনেক ধরনের পূর্ব লক্ষণ দেখা দেয়। তার মধ্যে অন্যতম কয়েকটি লক্ষণ হচ্ছে-
হাত পা ও মুখের অসাড় অবস্থা তৈরি হওয়া। বিশেষ করে এই সমস্যা দেখা দেয় শরীরের এক অংশে। হাঁটাচলা করতে সমস্যা হয়। ভারসাম্য বজায় রেখে চলতে অসুবিধা হয়। কথা বলার সময় সমস্যা হয় এবং মুখ বেঁকে যেতে পারে।মানুষের কথা বুঝতে অসুবিধা হতে পারে। দু চোখে দেখতে অসুবিধা হতে পারে হঠাৎ করে প্রচন্ড মাথা ব্যথা শুরু হয়ে যেতে পারে। ঝিমুনি ভাব আসতে পারে এবং প্যারালাইসিস হওয়ার মতো সমস্যা হতে পারে। তবে অনেক সময় দেখা যায় এসকল সমস্যার সাথে মাইগ্রেনের সমস্যার সাথে মিলে যেতে পারে। তবে সমস্যা যাই হোক এ সকল লক্ষণ দেখা দিলে অতি সত্বর চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত এবং রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে। কখনো এ সকল পরিস্থিতিতে বসে থাকা উচিত নয়। কারণে স্ট্রোক এর লক্ষণ গুলো খুব দ্রুত সংঘটিত হয় এবং রোগীকে চিকিৎসা প্রদান করতে দেরি হলে অনেক জটিল সমস্যায় পড়তে পারেন।

আপনার কোন নিকটাত্মীয় বা আশেপাশের কেউ স্ট্রোক এর এসব লক্ষণ আক্রান্ত হয়েছে তাহলে আর বসে না থেকে তাকে নিয়ে দ্রুত হাসপাতালে যান।এবং দ্রুত চিকিৎসার ব্যবস্থা করুন। কারণ স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগীর এসব লক্ষণ খুব দ্রুত দেখা দেয় এবং খুব দ্রুতই মারাত্মক পর্যায়ে চলে যেতে পারে।।মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের ফলে স্ট্রোক রোগী মারা পর্যন্ত যেতে পারে। তাই আমাদের সকলেরই এই স্টক সম্পর্কে সচেতন হওয়া উচিত এবং স্ট্রোকের কারণ গুলো জেনে নেওয়া উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *