Emoji-এর না জানা ইতিহাস

ভার্চুয়াল এই জগতে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যমগুলোর মধ্যে ফেসবুক,হোয়াটসঅ্যাপ,ইন্সটাগ্রাম উল্লেখযোগ্য। আর দূরবর্তী এই যোগাযোগে ভাব প্রকাশের অন্যতম একটি মাধ্যম হলো Emoji।বিশেষ করে আমি কি দেখাতে চাচ্ছি, কোন ভাব প্রকাশ করতে চাচ্ছি তা লিখে প্রকাশ করা সম্ভব না হলেও Emoji দিয়ে সম্ভব।

হ্যাঁ, আমরা সবাই এটা কমবেশি ব্যবহার করে থাকি। তবে কখনো কি প্রশ্ন করে দেখছি Emoji কেন এলো? কিভাবেই বা এলো? হয়তোবা করিনি। কিন্তু জানতে কি ইচ্ছা করে না? আর জানলে ক্ষতিই বা কি? তাই তো বিডীটিপস এর আজকের পর্বে থাকছে ইমোজি এর না জানা কিছু ইতিহাস। চলুন শুরু করা যাক-

 ২২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৯৯-

শিগেতাকা কুরিতা নামক এক জাপানি ভদ্রলোক ভাবছিলেন কিভাবে খুব সহজ পন্থায় মানুষের কাছে নিজের মনের ভাব প্রকাশ করা যায় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে। আর এই ভাবনার প্রকৃতরূপ হিসাবে ঐ বছর ১৭৬টি Emoji তৈরি করা হয়। অর্থাৎ ইমোজি আবিষ্কারের সূত্রপাত জাপানেই।
যদিও এর আগে অনেক নিউজপ্রিন্টে ইমোটি-আইকন ব্যবহার করা হয়। তারপরেও আধুনিক ইমোজি অর্থাৎ মোবাইলে ব্যবহারকৃত এই ইমোজির যাত্রা শুরু এখান থেকেই।

১জুন,২০০৩-

জাপানের সেই ১৭৬টি ইমোজির পর কাজ কিছুদিন বন্ধ থাকে। তবে ৪বছর পর আবার সেই যাত্রা পুনরায় শুরু করে মাইক্রোসফট। ইমোটি-আইকন এর জন্য জনপ্রিয় মাইক্রোসফট কোম্পানি এই বছর তাদের Msn Messenger 6 এর জন্য মোট ৩০ টি ইমোটি-আইকন তৈরি করে যা সে সময় তুমুল জনপ্রিয়তা সৃষ্টি করে।

৯ আগস্ট,২০০৭-

মাঝখানে আবার ৪ বছর বন্ধ থেকে ২০০৭ সালে গুগলের হাত ধরে পুনরায় যাত্রা শুরু হয়। গুগল এ সময় জাপান ও এশিয়াতে তাদের প্রভাব বিস্তার করতে জিমেইল সেবায় ইমোজি যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়। এই পরিকল্পনায় তাদের সহযোগিতা করে KDDI AU এবং উভয়ই মিলে অনন্য কিছু Emoji এর পরিচিতি ঘটায়।

২৩অক্টোবর,২০০৮-

এবার আর আগের মতো বিলম্ব না করে গুগল এই ইমোজি প্রোজেক্টে নতুন মাত্রা আনার চেষ্টা করে। আর তাদের অনেক পরিশ্রমের ফলশ্রুতিতে এই বছর নতুন করে ৭৬ অ্যানিমেটেড ইমোজি যুক্ত হয় তাদের জিমেইল সেবায় । যা সে সময় অত্যন্ত জনপ্রিয়তা লাভ করে কেননা এর আগে কেউ অ্যানিমেটেড  Emoji এর সাথে পরিচিত ছিল না।
কিন্তু জাপানের মোবাইল মেসেজনিং সেবায় এর কিছু সীমাবদ্ধতা ছিল।

২১ নভেম্বর, ২০০৮-

এবছরেরই নভেম্বরে অ্যাপল কোম্পানি ইমোজি প্রোজেক্টের উপর গুরুত্ব আরোপ করে। যার ফলসরূপ IOS 2.2 তে নতুন কিছু ইমোজি এর আবির্ভাব পরিলক্ষিত হয়। তবে এতে কিছু বাধ্যবাধকতা ছিল যেমন এখানে ডিফোল্ট ইউজার হিসাবে জাপানের সফট ব্যাংক ইউজারদের নির্ধারণ করা হয়।
তবে অন্যরা যে ব্যবহার করতে পারতো না এমনটি নয়। এক্ষেত্রে অন্যান্য দেশের ক্ষেত্রে তাদেরকে অ্যাপেল অ্যাপ স্টোর থেকে ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারতো।

৫মার্চ,২০০৯-

মার্চ,২০০৯, অ্যাপেলের দুজন ইঞ্জিনিয়ার ইয়াসুও কিডা ও পিটার এডবার্গ  ৬২৫টি ইমোজি ইউনিকোডকে দেয়ার প্রস্তাব করে এবং ইউনিকোড তা মেনে নেয়।

১২ অক্টোবর, ২০১০-

অ্যাপেলের প্রস্তাবের সেই ৬২৫টি ইমোজি ইউনিকোড তাদের Unicode 6.0 ভার্সনের সাথে রিলিজ বা জনগণের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়। এই ইমোজিগুলো মূলত ব্লক আকৃতির ছিল যা ততটা জনপ্রিয়তা কাড়তে সক্ষম হয়নি।
আর এভাবেই ইমোজির পুরাতন কনসেপ্টের ইতি ঘটে। তবে পরবর্তী ইতিহাস আরো জাকজমকপূর্ণ। জানতে হলে সাথেই থাকুন-

আধুনিক ইমোজির যাত্রা শুরু –

ইমোজি সম্পর্কিত পুরাতন কনসেপ্ট এর ইতি টেনে আস্তে আস্তে আধুনিক ইমোজির যাত্রা শুরু হয়। এই যাত্রায় উল্লেখযোগ্য কিছু ইমোজির মধ্যে রয়েছে আমাজনের ইমোজি ডিক, ২০১৫ রিলিজ হওয়া ইউনিকোডের পাঁচটি রঙের Thumbs Up ইমোজি ও আরো অনেক।
আর গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এই যে ২০১৫ সালেই আধুনিক ইমোজির কাঠামো অর্থাৎ আমরা এখন যে ইমোজি দেখতে পাই তার প্রথমরূপ প্রকাশিত হয়। এই ইমোজিটির ব্যবহার ছিল মূলত Word of the Year এর মতো কিছু বিষয়কে চিহ্নিত করা।

পরবর্তীতে ২০১৭ সালে অ্যাপেল পুনরায় দাড়িসহ মানুষ ও বানরের ইমোজি বানিয়েছিল যা বিশ্ববাসীর কাছে যথেষ্ট সমাদৃত হয়েছিল। এরপর ইমোজি পরিচিতির জন্য  Dictionary.com আসে যাতে সব ধরনের ইমোজির পুংখানুপুংখ  ব্যাখ্যা তুলে ধরা হয়।সত্যি ইমোজি পরিচিতিতে এর গুরুত্ব অত্যাধিক।

এরপরের কাহিনি হয়তো আমাদের সবারই জানা। ফেসবুক মেসেঞ্জার থেকে শুরু করে ইন্সটা হোয়াটসঅ্যাপেও ছড়িয়ে পরে এর ব্যবহার। নতুন নতুন ইমোজি যুক্ত হয়েই চলেছে নতুন নতুন আপডেটগুলোতে। বলতে গেলে শিগেতাকা কুরিতার সেই ভাবনার সহজ থেকে সহজতর রূপ আসছে প্রতিনিয়ত। যা আমাদের দূরবর্তী যোগাযোগকেও করেছে আরো সহজতর ও বাস্তবিক।

আশা করি ইমোজি নিয়ে আপনার ধারণা পরিষ্কার হয়েছে। আগামী পর্বে আরো কিছু নতুন নিয়ে আসবো। তবে আপনার পছন্দের কিছু থাকলে অবশ্যই জানাবেন কমেন্টে । আমাদের সাইট থেকে ঘুরে আসুন- বিডিটিপস । ধন্যবাদ।

About the Author:

I am Habib , I am expert in covering all latest bangladeshi news. I cover all national and latest news of bangladesh in this news site bdtip.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!